Thursday, April 25, 2024
Google search engine
Homeদক্ষিণবঙ্গছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ গৃহ শিক্ষকের বিরুদ্ধে

ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ গৃহ শিক্ষকের বিরুদ্ধে

নিজস্ব প্রতিনিধি,বর্ধমানঃ ছাত্রীকে শ্লীলতাহানি করার অভিযোগ উঠলো এক গৃহ শিক্ষকের বিরুদ্ধে। ছাত্রীকে নগ্ন করে ছবি ক্যামেরা বন্দি করার পাশাপাশি বাইরে বললে খুনের হমকিও দেওয়া হয়েছে। গৃহশিক্ষকের বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ জানিয়েও আতঙ্কে ছাত্রী ও তাঁর বাবা মা। বাড়িতেই গৃহশিক্ষকতা করত যুবক সব্যসাচী মসান।কিন্তু সেখানেই সভ্যসাচীর যৌন লালসার শিকার হয় এক নাবালিকা স্কুল ছাত্রী। পূর্ব বর্ধমানের জামালপুর থানার পুলিশের কাছে গৃহশিক্ষক সব্যসাচীর কুকীর্তি ফাঁস করে দিয়ে এখন প্রাণ ভয়ে তটস্থ  ছাত্রী সহ গোটা পরিবার। ঘটনার পর থেকেই কীর্তিমান শিক্ষক এখন বাড়ি ছেড়ে বেপাত্তা। তবে পুলিশ হন্যে হয়ে অভিযুক্ত ওই গৃহ শিক্ষকের খোঁজ চালাচ্ছে। পুলিশ জানিয়েছে,জামালপুর ১ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত দোলরডাঙ্গা গ্রামের বাসিন্দা গৃহশিক্ষক সব্যসাচী মসান ওরফে জন্টির বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ করে ছাত্রীর পরিবার। নির্যাতিতা স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণীর পড়ুয়া। নাবালিকার মা লিখিত ভাবে পুলিশকে জানিয়েছে, “তাঁর মেয়ে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় সব্যসাচী মসানের বাড়িতে প্রাইভেট পড়তে যায়। পড়ানোর সময় সভ্যসাচী হঠাৎই তার ঘর থেকে ছাত্রদের বের করে দেয়।শুধু তার মেয়েকেই ঘরে বন্ধ করে রাখে।এরপর সব্যসাচী তার নাবালিকা মেয়ের শ্লীলতাহানি করে।পরে তাঁর মেয়েকে উলঙ্গ করে সব্যসাচী মোবাইল ফোনে ছবি তোলে।এসব নিয়ে তার মেয়ে প্রতিবাদ করে। তখনই সব্যসাচী হুমকি দেয়, ‘তার কীর্তির কথা  কাউকে জানালে সে সমস্ত ছবি সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল করে দেবে’।এমনকি মেয়েকে  প্রাণে মেরে দেবে বলেও সভ্যসাচী মসান হুমকি দেয়। নাবালিকার মা পুলিশকে জানিয়েছেন, সব্যসাচীর হুমকিতে আতঙ্কিত  হয়ে মেয়ে সেদিন প্রাইভেট শিক্ষকের বাড়ি থেকে ফিরে এসে কাউকে কিছু বলে নি।ঘটনার একদিন বাদে মেয়ে বাড়ির সবার কাছে সব্যসাচীর কুকীর্তির কথা খুলে বলে।তা শুনে তিনি আর এক মুহুর্ত দেরী না করে ২৬ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় মেয়েকে সঙ্গে নিয়ে থানায় গিয়ে সব্যসাচী মসানের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। জেলার পুলিশ সুপার আমনদ্বীপ জানিয়েছেন, ‘গোপন জবানবন্দি পেশের জন্যে নাবালিকাকে বর্ধমান আদালতের ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে হাজির করানো হয়েছে। নাবালিকার মায়ের দায়ের করা অভিযোগের ভিত্তিতে সব্যসাচী মসানের বিরুদ্ধে পকসো এ্যাক্ট সহ একাধিক ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকেই অভিযুক্ত গা ঢাকা দিয়েছে। তার সন্ধান চালানো হচ্ছে’। অভিযুক্ত সব্যসাচী মসানের বাড়ি এখন তালাবদ্ধ। অভিযুক্ত গৃহ শিক্ষক সব্যসাচী সহ পরিবারের সদস্যরা এখন গা ঢাকা দিয়েছে।  ছাত্রীর বাবা এলাকার এক ব্যবসায়ীর দোকানে কাজ করেন। মা সাধারণ গৃহবধূ। তাঁরাও সব্যসাচীর হুমকি নিয়ে যথেষ্টই আতঙ্কিত।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments