Thursday, May 23, 2024
Google search engine
Homeদক্ষিণবঙ্গএকদিকে ঝা চকচকে রাস্তা,সেই শহরেই অন্যদিকে খানাখন্দে ভরা রাস্তায় ঝুঁকি নিয়ে চলা

একদিকে ঝা চকচকে রাস্তা,সেই শহরেই অন্যদিকে খানাখন্দে ভরা রাস্তায় ঝুঁকি নিয়ে চলা

নিজস্ব প্রতিনিধি,বাঁকুড়াঃ চিত্রটা কোনো প্রত্যন্ত গ্রামের নয়,খোদ বাঁকুড়া শহরের পৌর এলাকার। রাস্তার পোশাকি নাম তারাগতি সামন্ত রোড। যা বাঁকুড়া শহরের কাটজুড়িডাঙ্গা থেকে সার্কিট হাউস মোড় অবদি বিস্তৃত। এই রাস্তা দিয়েই যাওয়া যায় বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও বাঁকুড়া বাসস্ট্যান্ডে। শহরের অন্যদিকে একটি উড়ালপুল তৈরি হওয়ায় এখন এই রাস্তার উপর বেড়েছে অত্যাধিক চাপ। এখন শহরে প্রবেশ করতে হলে এখন এটাই একমাত্র রাস্তা। নিত্যদিন শহর সহ গ্রামের মানুষজন যাতায়াত করেন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এই রাস্তা দিয়ে। বাঁকুড়া শহরের বুকে এই দুই থেকে আড়াই কিলোমিটার রাস্তা আজ প্রায় ১০ বছর ধরে বেহাল অবস্থায় পড়ে রয়েছে। তার জেরে চরম সমস্যায় পড়ছে নিত্যযাত্রী থেকে শুরু করে পড়ুয়া এমনকি রুগীবাহী এম্বুলেন্সও। বিষয়টা নিয়ে একাধিকবার পৌর প্রতিনিধি এবং পৌর প্রশাসকের দারস্থ হলেও মেলেনি কোনে সুরাহা অভিযোগ স্থানীয়দের। শহরের একদিকে যেখানে যা চকচকে রাস্তা,নীল সাদা পলেপের নদী সেতু, বড় বড় করে লেখা হোর্ডিং আই লাভ মাই বাঁকুড়া। সেখানেই খানাখন্দে ভরা জলে ভর্তি জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলা এই রাস্তা লজ্জা দিচ্ছে জেলা প্রশাসনকে। যদি বাঁকুড়া সদর শহরের রাস্তার এই অবস্থা এমন হয়, তাহলে ভাবুন প্রত্যন্ত জায়গায় লুকিয়ে রয়েছে কত অজানা সমস্যার উপাখ্যান।এই তারাগতি সামন্ত রোড বাঁকুড়া পৌরশহরের ২২ এবং ২৪ নাম্বার ওয়ার্ডের মাঝে অবস্থিত। ২৪ নং ওয়ার্ড যা বাঁকুড়া পৌরসভার ভাইস চেয়ারম্যানের ওয়ার্ডও বটে৷ তারও পরও কি চোখে পড়েনি রাস্তার এই কঙ্কালসার অবস্থার নাকি দেখেও না দেখা করার ভান করেছেন প্রশাসনিক আধিকারিকরা এই প্রশ্ন তুলছেন এলাকাবাসী সহ যাতায়াতকারীরা। পুজো এলেই দেওয়া হয় রাস্তায় জোড়াতালি। আর বৃষ্টিতে সেই জোড়া তালি উঠে গিয়ে ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করে রাস্তা। এবার তাই জোড়া তালি নয় রাস্তা পিচ তুলে দিয়ে নতুন রাস্তার দাবি তুলছেন সকলেই। দীর্ঘ ১০ বছর ধরে করা হয়নি রাস্তা। পুজো এলেই জোড়া তালি দিয়ে দ্বায়সারে পৌরসভা। গাড়ি নিয়ে এই গেলে বার হলেই গাড়ির ক্ষতি হয়। ভাঙাচোরা খানাখন্দে ভরা রাস্তায় যেতে গিয়ে প্রায়সই ঘটে দুর্ঘটনা দাবি যাতায়াতকারীদের। এদিকে রাস্তা খারাপ নিয়ে কাদা ছোড়াছুড়িতে ব্যস্ত তৃণমূল উপ পৌর প্রধান ও স্থানীয় কাউন্সিলর। তৃণমূল পরিচালিত পৌরসভার দিকেই আঙ্গুল তুলেছেন স্থানীয় তৃণমূল কাউন্সিলর। ঠিকাদাররা নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে কাজ করছে আর তাদের অবহেলাতেই নষ্ট হচ্ছে রাস্তা এ ব্যাপারে পৌরসভা কে জানিয়েছেন কিন্তু কোন কাজ হয়নি এমন অভিযোগ স্থানীয় তৃণমূল কাউন্সিলরের। এদিকে উপ পৌর প্রধানের দাবি এলাকায় ঘুরেন না স্থানীয় কাউন্সিলর। তবে পুজোর আগেই করে দেওয়া হবে রাস্তা এমন আশ্বাস মিলেছে। বিজেপির কটাক্ষ কাদা ছোড়াছুড়ি নয় জনগণের কাজ করুন।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments