Wednesday, February 28, 2024
Google search engine
Homeদক্ষিণবঙ্গসাত মাস ধরে নিখোঁজ নাবালিকার তদন্তের ভার এবার সিবিআইকে

সাত মাস ধরে নিখোঁজ নাবালিকার তদন্তের ভার এবার সিবিআইকে

নিজস্ব প্রতিনিধি, বর্ধমান: পূর্ব বর্ধমানের রায়নার নাবালিকা নিখোঁজের ঘটনায় সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিল হাইকোর্ট। নির্দেশ দিলেন বিচারপতি জয় সেনগুপ্ত। পুলিশের তদন্তে উদাসীন মনোভাব দেখে ১৫ জানুয়ারি সিআইডি তদন্তের নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট। পুলিশের হাতে মামলা থাকাকালীন দু’জন গ্রেপ্তার হলেও ৯০ দিনের মধ্যে চার্জ সিট না দেওয়ায় জামিন পেয়ে যায় অভিযুক্ত সফিকুল সেখ ও জসিমউদ্দিন সেখ। সিআইডি এখনও পর্যন্ত কয়েকজনকে শুধু জেরা করেছে। গত ৯ আগষ্ট পূর্ব বর্ধমানের রায়না থানা এলাকায় এক নাবালিকা নিখোঁজ হয়ে যায়। সে স্থানীয় হাইস্কুলের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী। অপহরণে জড়িত থাকার অভিযোগে শেখ সফিকুল ও শেখ জসীমউদ্দিন সেখ নামে দুই যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়। খণ্ডঘোষ থানার লতিফপুর ও বাদুলিয়ায় তাদের বাড়ি। দু’দফায় ৭ দিন তাদের হেফাজতে নিয়েও ছাত্রীর হদিশ পায়নি পুলিস। দ্বিতীয় দফার ৪ দিনের পুলিসি হেফাজতের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর ধৃতদের ফের আদালতে পেশ করা হয়। তদন্তের প্রয়োজনে ধৃতদের আরও ৭ দিন নিজেদের হেফাজতে নিতে চেয়ে আদালতে আবেদন জানান রায়না থানার তদন্তকারী অফিসার। সেই আবেদন মঞ্জুর করেন সিজেএম।গত ৯ আগস্ট সন্ধ্যা ৬টা নাগাদ টিউশন পড়তে যাওয়ার কথা বলে সে বাড়ি থেকে বের হয়। তারপর থেকে তার হদিশ মিলছে না। বিভিন্ন জায়গায় খোঁজখবর করেও ছাত্রীর খোঁজ না পেয়ে তার মা ১৭ আগষ্ট থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।
কয়েকদিন পর পরিবার জানতে পারে তাদের মেয়েকে ফুসলিয়ে অপহরণ করে অন্যত্র নিয়ে গেছে খণ্ডঘোষের লতিপপুর এলাকার সফিকুল সেখ ও বাদুলিয়া এলাকার জসিম সেখ। পরিবারের দাবি জসিম সকলের সামনে স্বীকার করেছিল সে মেয়েটিকে বাইকে চাপিয়ে স্টেশন পর্যন্ত নিয়ে গিয়েছিল সফিকুলের কাছে। পরিবারের আরও দাবী, তারা অভিযুক্তদের পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছিল। নাবালিকা অপহরণকারীদের কঠিন শাস্তি ও তাকে উদ্ধাররের দাবিতে পথ অবরোধ হয় রায়নায়। ভারত জাকাত মাঝি পরগনা নামে আদিবাসী সংগঠন গত ১২ অক্টোবর রায়না থানার শ্যামসুন্দর বাজার মোড়ে অবরোধ করে। সেই অপহরণকারীদের শাস্তির দাবিতেই এই অবরোধ কর্মসূচি। আগামী ১৩ মার্চ পরিবর্তী শুনানিতে সিবিআইকে তদন্তে অগ্রগতির রিপোর্ট দিতে হবে আদালতে। হাইকোর্ট সিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দেওয়ায় খুশী নাবালিকার মা। তিনি বলেন, আমার মেয়েকে বহু খোঁজাখুজি করার পর তার কোন হদিস পাই নি।আমি চাই মেয়েকে ফিরে পেতে।প্রতিবেশীরাও খুশী সিবিআইকে তদন্তভার দেওয়ায়। তাদের আশা এবার খোঁজ মিলতে পারে ওই নাবালিকার।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments