Saturday, July 20, 2024
Google search engine
Homeদক্ষিণবঙ্গমোদির সভার ২৪ ঘন্টার মধ্যে একই মাঠে পালটা সভা মমতার, মুখ্যমন্ত্রীর মুখে...

মোদির সভার ২৪ ঘন্টার মধ্যে একই মাঠে পালটা সভা মমতার, মুখ্যমন্ত্রীর মুখে ফের সেই কার্তিক মহারাজ

নিজস্ব প্রতিনিধি, বাঁকুড়া: বিষ্ণুপুর লোকসভার নিকুঞ্জপুর মাঠে প্রধান মন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির সভার ২৪ ঘন্টার মধ্যেই পালটা সভা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। রবিবার দুপুরে বিষ্ণুপুর লোকসভার নিকুঞ্জপুরে বিজয় সংকল্প সভা করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বিষ্ণুপুর লোকসভা কেন্দ্রের দলীয় প্রার্থী সৌমিত্র খাঁ এর সমর্থনে। সেই সভার ২৪ ঘন্টার মধ্যেই একই স্থানে সোমবার দুপুরে সভা করলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ২৪ ঘন্টার মধ্যে সভা করে বিজেপি কে চ্যালেঞ্জ নেয় জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব। এবার শুধুমাত্র বিষ্ণুপুর লোকসভার তৃণমূল প্রার্থী সুজাতা মণ্ডলের সমর্থনে শুধু নয় জোড়া প্রার্থী বাঁকুড়া লোকসভা কেন্দ্রের অরূপ চক্রবর্তীর সমর্থনেও এদিন সভামঞ্চ থেকে বক্তব্য রাখেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সভায় রেকর্ড ভীড় করে পালটা জবাব দিতে মরিয়া ছিল শাসক দল তৃণমূল। এই চ্যালেঞ্জ নিয়ে প্রচুর মানুষ এদিন ভিড় জামান নিকুঞ্জপুর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সভার দর্শক আসনে। এদিন দর্শকের ভিড়ে উপচে পড়ছিল দর্শক আসন, হেলিপ্যাড সহ বিভিন্ন জায়গা। এদিন বেলা বারোটার কিছু পরে হেলিকপ্টারে করে দুর্গাপুর থেকে বাঁকুড়ার নিকুঞ্জপুর সভা মঞ্চের পাশেই অস্থায়ী হেলিপেডে এসে পৌঁছায় মমতম বন্দ্যোপাধ্যায়ের হেলিকপ্টার। তারপরই চাছাছোলা বক্তব্যে বিদ্ধ করে বিজেপিকে। দাবী করেন, উন্নয়নের নিরিখে মোদিকে জবাব দিন,আমরা প্রতিশ্রুতি দিয়ে তা পালন করি। উন্নয়নের কথা বলি। আমরা যেটা বলি তার বেশী করি। আর মোদি যেটা বলে সেটা ফোর টুয়েন্টি। এরা শুধু ভয় দেখাতে জানে। চাল দিচ্ছে, এক টাকাও দেয়নি। মোদির গ্যারিন্টি মানে ফোর টুয়েন্টি। শুধু মিথ্যে কথা বলা। জল দিচ্ছেন, এটা সত্যি কথা একটুকুও নয়। বিনা পয়সায় গ্যাস দিচ্ছি এটা গ্যাস বেলুনের থেকেও বড় গ্যাস। সব মিথ্যে বলছেন। ঘরে ঘরে ১৫ লাখ টাকা দিয়েছে। ভাওতাবাজ, ঝুমলাবাজ মিথ্যেবাজ। ১০ কোটি চাকরি একটাও চাকরি দেয়নি। মানুষ খেকো বাঘ দেখেছেন। চাকরি খেকো বাঘ দেখেছেন।লক্ষীর ভাণ্ডার বন্ধের প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে বলেন আবার বলছে লক্ষীর ভান্ডার বন্ধ করে দেবে, দেখি কত ক্ষমতা লক্ষ্মীর ভান্ডার বন্ধ করে দেখাক।এই হাত বন্দুকের সাথে লড়াই করেছে, এই হাত হাতা খুন্তি নিয়েও লড়াই করতে জানি। মহিলারা সারাদিন রান্না ঘরে লড়াই করে।বিজেপি লুটেরার দল। বিজেপি হারছে। এইবার বিজেপি পগারপার।সব কিছু হয়েছে বাকি আছে মোদিকে দেশ থেকে তাড়ানো।মোদিকে না তাড়ালে সংবিধান ভেঙ্গে যাবে। মোদি না গেলে দেশ ভেঙ্গে যাবে। মোদি যাক দেশ থাক, মোদি যাক মানুষ থাক, মোদি যাক শান্তি থাক, মোদি যাক মায়ের সন্মান থাক,মোদি যাক দেশ ভালো থাক। বেলডাঙা ভারত সেবাশ্রম সংঘের সম্পাদক কার্তিক মহারাজ প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে বলেন, আমি বলেছি দু একজনের কথা। আমি রামকৃষ্ণ মিশনের বিরুদ্ধে নয়। আমি একটি লোকের নাম করে বলেছিলাম যার নাম কার্তিক মহারাজ। তিনি আমাদের এজেন্ট বসতে দেয়নি ভোটের দুদিন আগে দাঙ্গা লাগিয়ে ছিলেন মুশির্দাবাদে। আমি সেইজন্য বলেছিলাম এবং বলে যাবো। আপনি বিজেপি করুন বিজেপির চিহ্নটা বুকে লাগিয়ে করুন লুকিয়ে লুকিয়ে কেনো।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments