Friday, May 24, 2024
Google search engine
Homeদক্ষিণবঙ্গভাতারের নির্বাচনী সভা থেকে নাম না করে শুভেন্দু অধিকারীকে গদ্দার বলে কটাক্ষ...

ভাতারের নির্বাচনী সভা থেকে নাম না করে শুভেন্দু অধিকারীকে গদ্দার বলে কটাক্ষ তৃণমূল সুপ্রিমোর

নিজস্ব প্রতিনিধি, বর্ধমান: বর্ধমান দুর্গাপুর ও বর্ধমান পূর্ব লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেসের দুই প্রার্থী কীর্তি ঝা আজাদ ও শর্মিলা সরকারের সমর্থনে পূর্ব বর্ধমানের ভাতারের এরুয়ার স্কুল মাঠে নির্বাচনী সভা হয়। সভায় প্রধান বক্তা ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মঙ্গলবার তিনি বীরভূমের হাসানের সভা করে উপস্থিত হন হেলিকপ্টারে করে এরুয়ারের মাঠে। এদিন তিনি শুরু থেকেই কেন্দ্রীয় সরকারকে নিশানা করে বলেন, আগে রেশনে আধভাঙ্গা চাল দিত। আমরা চাষীদের কাছ থেকে সরাসরি ধান কিনি। ইলেকশনের সময় বাইরে থেকে এসে কিছু লোক দু একটাকা বেশি দিয়ে কিনতে আসবে।কিন্তু আপনারা সাবধানে থাকবেন জেলার চাষীদের উদ্দেশ্যে বলেন। তিনি বলেন, দেউচা পাচামিতে বড় কয়লা খনি চালু হচ্ছে। এক লক্ষ মানুষের কাজ হবে। পৌনে তিন কোটি টাকা খরচ করে নিম্ন দামোদর অববাহিকায় ছোট ছোট গেট করা হবে। বন্যা আটকানোর জন্য।এতে পূর্ব বর্ধমান ও হুগলির মানুষজন উপকৃত হবে। শক্তিগড়ের ল্যাংচা, সীতাভোগ মিহিদানা সবাই নিয়ে যায়।
শক্তিগড়ের ল্যাংচা হাব তৈরি করা হয়েছে। বর্ধমানের সীতাভোগ মিহিদানা খুব ভালো।
অণ্ডালে ইন্টারন্যাশনাল বিমান বন্দর তৈরি হয়েছে।
অন্যদিকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মোদী সরকারকে আক্রমণ করে বলেন, ওরা কি করেছে — তোমরা আমরা করেছো। বিজেপি না করলে খেতে দেওয়া হবে না। এনআরসি করা হবে। মোদীর নাম না করে মমতা বলেন ঘুম থেকে উঠলেই প্রচার বাবুর মুখ।
প্রচারবাবুর মুখ সকালে চা খাওয়ার সময়,দুপুরে খাবার সময়। কোন ধর্ম,কোন ভাষায় কথা বলবে,কে কি খাবে। বিজেপি না করলে বলছে খেতে দেওয়া হবে না, অধিকার কেড়ে নেওয়া হবে।
তিনি বর্ধমান দুর্গাপুর লোকসভা কেন্দ্রে বিজেপি প্রার্থী দিলীপ ঘোষের নাম না করে বলেন,যে মানুষটা বিজেপির হয়ে দাঁড়িয়েছে তার মুখের ভাষা শুনেছেন? পেটান,মারুন, জ্বালান আর একজন বোমা মারার কথা বলেন। রেশন আমরা দিই বাংলায় প্রায় ১১ কোটি লোককে। ওদের মত দিতে গেলে মাত্র ২০ থেকে ৩০ লক্ষ লোককে দিতে পারি।
একটা ব্যাগে যদি কেউ পাঁচ কেজি চাল দিয়ে ছবি,লোগো লাগিয়ে দেয়। ৯ হাজার কোটি টাকা রাজ্যকে দিতে হয়। ৩০ হাজার কোটি দিয়েছি রেশনের জন্য। একশো দিনের কাজের টাকা আমরা দিলাম। ৪৩ লক্ষ লোকের বাড়ি করে দিয়েছি। প্রচার বাবু বিজ্ঞাপনে বলছে আমরা বিনা পয়সায় রেশন দিই। নয় হাজার কোটি টাকা রাজ্যকে দিতে হয়। কেন্দ্রকে দিতে হয় সাত হাজার কোটি। কুড়ি হাজার কোটি আমরা দিয়েছি রেশনে।বাড়ি তৈরি টাকা কেন্দ্র বন্ধ করে দিয়েছে। আর এখন নির্বাচনের আগে চালাকি করে বিজেপি কলসেন্টার থেকে ফোন করা হচ্ছিল আপনার বাড়ি চাই। কেন করবে। আমরা ডিসেম্বর মাসে ১১ লক্ষ পরিবারের প্রথম কিস্তির ষাট হাজার টাকা করে দেব। আমরা বাংলায় যখন চাকরি দি আপনারা কোর্টকে দিয়ে কেড়ে নেন। ভুল তো যে কেউ করে। সব টার জন্য আলাদা আলাদা বিভাগ আছে।
আমরা কৃষক বন্ধু দিই।বহু মানুষ উপকৃত হন।
২ কোটি বেকারকে চাকরী দেবো বলেছিলেন
যারা ২৬ হাজার ছেলেমেয়ের চাকরি খেয়ে নিলেন। যদি তাদের ঘরের কেউ হতেন তাহলে তারা ভাবতেন না? আজ কেউ আত্মহত্যা করলে তার দায় আপনারা নেবেন? আমরা আপনাদের পাশে আছি। স্কুলগুলির কি হবে। মাষ্টার না থাকলে কে পড়াবে। বিজেপি পড়াবে?স্কুল গুলো কি করে চলবে বিজেপি ও আরএসএস পড়াবে। বলতে পারতো ভুল হয়েছে সংশোধন করে দিতে। এক মাসের মধ্যে সুদ সহ মাইনে ফেরত দিতে হবে।
শুভেন্দুর নাম না করে মমতা বলেন,সবচেয়ে বড় কুকর্ম যে করেছে তার নাম বড় গদ্দার। এতগুলো বাচ্চার জীবন নষ্ট করে নেচে বেড়াচ্ছিস। বিজেপির এই সরকারকে ভেঙে দিন ভোটের মাধ্যমে। মিথ্যা কথা যারা বলে তাদের একটাও ভোট নয়। মা বোনেরাও জানে দুষ্টুমি করলে কি করতে হয়।
বলে কি লক্ষ্মীর ভাণ্ডার বন্ধ করে দেবো।একটা লক্ষীর ভাণ্ডারে হাত দিয়ে দেখা। যতদিন বাঁচবেন লক্ষ্মীর ভাণ্ডার পাবেন।বিজেপি বলেছে তিন মাস বাদে আবার লক্ষ্মীর ভাণ্ডার বন্ধ করে দেবো।
সাহস থাকলে লক্ষ্মীর ভাণ্ডারে হাত দিয়ে বা ছুঁয়ে দেখা। বিজ্ঞাপন দিয়ে নেতা হওয়া যায়না। তার নামে এফআইআর করা যাবে না, এটা কদিন?বিজেপিকে বিদায় জানাবার জন্য দেশের লোক তৈরি। গলি গলিমে শোর হ্যায় বিজেপি চোর হ্যায়।অন্যদিকে মমতা বলেন,গতকাল রাতে সিসিটিভি বন্ধ করে ভোট চুরি করতে গিয়েছিল কুচবিহারে, আমাদের লোকেরা ধরে।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments